হোম / অর্থনীতি-সংবাদ / সারাদেশে সুপারশপ বন্ধে হয়রানিতে ক্রেতারা
Super-Shop

সারাদেশে সুপারশপ বন্ধে হয়রানিতে ক্রেতারা

অর্থনৈতিক রিপোর্টার

১৫ মে সারা দেশে চেইন সুপারশপ বন্ধ রেখেছে বাংলাদেশ সুপারমার্কেট ওনার্স অ্যাসোসিয়েশন। নীতিমালায় বৈষম্য ও আইনের অপপ্রয়োগের মাধ্যমে হয়রানি’র প্রতিবাদে এ কর্মসূচিপালন করছে তারা। তবে হঠাৎ মীনা বাজার, প্রিন্স বাজার, আগোরা, স্বপ্ন, আলমাসের মতো সুপারশপগুলো বন্ধ থাকার ঘোষণায় কিছুটা বিপাকে পরেছেন ওইসব শপের নিয়মিত ক্রেতারা। রোববার সকালে ধানম-ির মীনা বাজারের সামনে দেখা যায় কয়েকজন ক্রেতা বাজার করতে এসে মীনা বাজার বন্ধ দেখে হতাশ হয়েছেন। ধানম-ি ৮ নম্বরের বাসিন্দা তাহমিনা আক্তার এসেছিলেন কিছু কাঁচা বাজার করতে। মীনা বাজার থেকেই নিয়মিত বাজার করেন তিনি। বাসায় মেহমান আসায় তিনি বাজার করতে এসে দেখেন দোকান বন্ধ। এই অবস্থায় তিনি কী করবেন ঠিক বুঝে উঠতে পারছেন না। তার অভিযোগ এভাবে হুট করে বিপণন বন্ধ রাখলে নিয়োমিত ক্রেতাদের অসুবিধায় পড়তে হয়। এটা কতৃপক্ষের বিবেচনা করা উচিত। তবে বিষয়টিকে ভিন্ন ভাবে দেখছেন বাংলাদেশ সুপারমার্কেট ওনার্স অ্যাসোসিয়েশনের মহাসচিব মো. জাকির হোসেন। তিনি বলেন, ক্রেতা ও ভোক্তাদের সেবার মান বাড়াতে আমরা বন্ধপরিকর। তবে সম্প্রতি আমাদের কিছু শপে অবৈজ্ঞানিক পদ্ধতিতে খাদ্য পরীক্ষা করে জরিমানা করা হয়েছে। এর মাধ্যমে ক্রেতাদের কাছে ভুল বার্তা যাচ্ছে। তাই আমারা এর প্রতিবাদ জানাচ্ছি। তিনি অভিযোগ করেন, সুপারমার্কেটে একেক সময় একেকটি কর্তৃপক্ষ মিডিয়াকে সঙ্গে নিয়ে বিশাল বহর নিয়ে অভিযানে আসে। অবস্থাদৃষ্টে মনে হয় খাদ্যের গুণগত মানের চেয়ে মিডিয়ায় প্রচারণাই তাদের প্রধান উদ্দেশ্য। এভাবে সুপারশপকে অনর্থক প্রতিপক্ষ বানানো খুবই দুঃখজনক। একটি বিকাশমান খাতকে অন্যায়ভাবে হয়রানি করা হচ্ছে। চেইন শপ স্বপ্ন এর নির্বাহী পরিচালক সাব্বির হাসান নাসির বলেন, আমরা দীর্ঘদিন ধরে অহেতুক হয়রানি বন্ধের জন্য সরকারের সংশ্লিষ্টদের অনুরোধ জানিয়ে আসছি। তারপরও এটা বন্ধ না হওয়ায় আমরা আমাদের প্রতিষ্ঠান বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নিতে বাধ্য হয়েছি। উল্লেখ, গত ১১মে মেয়াদোত্তীর্ণ ও পচা খাবার রাখার অভিযোগে রাজধানীতে সুপার শপ আগোরা ও মীনা বাজারের দুটি আউটলেটকে জরিমানা করে ভ্রাম্যমাণ আদালত। এর প্রতিবাদে আজ সারা দেশে চেইন সুপারশপ বন্ধ রেখেছে বাংলাদেশ সুপারমার্কেট ওনার্স অ্যাসোসিয়েশন।

আরও দেখুন

images-21

গরুর মাংস, মুরগি, ডিম, চিনিসহ অন্যান্য পণ্যের দাম বাড়ছেই

রেজাউল হোসেন রুবেল : কয়েকদিন আগে রাজধানীতে প্রতিকেজি গরুর মাংস বিক্রি হয়েছে ৩৮০ টাকা থেকে ...

Leave a Reply

%d bloggers like this: