হোম / স্বাস্থ্য-সংবাদ / গরমে ডায়াবেটিস রোগীর সমস্যা ও প্রতিকার
PantherMedia 906049
PantherMedia 906049

গরমে ডায়াবেটিস রোগীর সমস্যা ও প্রতিকার

এম সংবাদ  ডেস্ক:
প্রচ- গরমে অতিষ্ট জন-জীবন। এমন আবহাওয়ায় সকল বয়সের মানুষেরই একটু বেশি সতর্ক থাকা উচিৎ। তবে যাদের ডায়াবেটিস আছে তাদেরকে আরও বেশি যতœবান হওয়া জরুরী। তা না হলে পানি শূণ্যতা থেকে শুরু করে, প্রস্রাবের প্রদাহ, ত্বকের সংক্রমন, এলার্জিসহ নানা ধরনের জটিলতা দেখা দিতে পারে। যে সব ডায়াবেটিস রোগীর কিডনীর অবস্থা ভালো নয়, উচ্চ রক্তচাপ আছে, হৃদরোগ আছে অথবা যাদের ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণের জন্য বেশি পরিমানে ইন্সুলিন প্রয়োজন হয়, ডাইউরেটিক্স জাতীয় উচ্চ রক্তচাপের ওষুধ সেবন করতে হয় তাদেরকে এসব সমস্যা জোরালোভাবে আক্রান্ত করতে পারে।
প্রখর উত্তাপ ও স্যাঁতসেঁতে পরিবেশে সময় কাটানো আপনার শরীরে ডায়াবেটিসের মতো দীর্ঘমেয়াদী রোগের ওপর নেতিবাচক প্রভাব ফেলে। উষ্ণ আবহাওয়া মানুষের কর্মশক্তি বাড়ালেও অতিরিক্ত তাপমাত্রা এবং স্যাঁতসেঁতে পরিবেশ ডায়াবেটিস রোগের ক্ষেত্রে বিভিন্ন ধরণের অসুবিধা সৃষ্টি করে থাকে।
ডায়াবেটিস রোগীর ক্ষেত্রে গরমে যেসকল সমস্যা সৃষ্টি হয় ঃ গরম আবহাওয়ায় শরীরের জলবিয়োজন একটি গুরুতর সমস্যা। এর ফলে রক্তে গ্লুকোজের পরিমাণ বেড়ে যাওয়ার ঝুঁকি থাকে। অতিরিক্ত গরমে ডায়াবেটিস রোগীদের শরীরে ব্লাড সুগার অস্বাভাবিক পরিমানে বাড়ে-কমে এবং হাইপোগ্লাইসেমিয়া ও হাইপারগ্লাইসেমিয়ার সম্ভাবনা থাকে। ডায়াবেটিস রোগীদের উচিৎ এ সময়ে অধিক পরিমানে তরলজাতীয় খাবার গ্রহণ করা এবং ঘন ঘন জলপানের প্রতি গুরুত্ব দেয়া।
গরম আবহাওয়ায় ডায়াবেটিসের ঝুঁকি ঃ যারা ব্লাডসুগার কমানোর জন্য চিকিৎসা নিচ্ছেন গরম আবহাওয়ায় তাদের হাইপোগ্লিসেমিয়া বাড়ার ঝুঁকি রয়েছে। গরম এবং আদ্র আবহাওয়ায় শরীরে মেটাবোলিজমের পরিমাণ বেড়ে যাওয়ার ফলে হাইপোগ্লিসেমিয়া বাড়ারও সম্ভাবনা থাকে।
করণীয় ঃ গরমে ঘর্মাক্ত বা ক্লান্ত হয়ে পড়া হাইপোগ্লেসিমিয়ার লক্ষণ হতে পারে। তাই এগুলো এড়িয়ে যাওয়া ঠিক হবে না। গাড়ি চালানোর সময় নিজের বাড়তি যতœ নিন এবং প্রতিবার দীর্ঘভ্রমণের আগে ও পরে ব্লাড সুগার পরীক্ষা করুন।
হাইপো প্রতিরোধে, বিশেষত যখন গরমের মধ্যে শারীরিক পরিশ্রম করেন, রক্তে গ্লুকোজের পরিমাণ ঘনঘন পরীক্ষা করান। কার্বোহাইড্রেট থেকে দূরে থাকার জন্য গ্লুকোজ ট্যাবলেটজাতীয় ওষুধ সঙ্গে রাখুন।
স্থান এবং তাপমাত্রা পরিবর্তনের সময় আপনার দেহে ইনসুলিনের মাত্রা দেখে নিন। যদি ব্লাড সুগার কম বা বেশি হয় ডাক্তারের পরামর্শ নিন।
ডায়াবেটিস রোগীদের উচিৎ এ সময়ে অধিক পরিমানে তরলজাতীয় খাবার গ্রহণ করা এবং ঘন ঘন জলপানের প্রতি গুরুত্ব দেয়া।

আরও দেখুন

06-

যেসব ছোট ছোট বিপদ সংকেতের মাধ্যমে বুঝবেন সামনে বড় বিপদ

এম সংবাদ লাইফস্টাইল: আমাদের শরীর প্রকৃতির বড় একটি বিস্ময়। অনেক সময়ে বড় কোনো অসুখ শরীরে ...

Leave a Reply

%d bloggers like this: