সর্বশেষ সংবাদ
হোম / মাঠে ময়দানে / সিদ্দিকুরেরও জানা নেই ‘অপমৃত্যুর’ কারণ

সিদ্দিকুরেরও জানা নেই ‘অপমৃত্যুর’ কারণ

এম সংবাদ স্পোর্টস:

১৫ নম্বর হোল পর্যন্ত সব ঠিকঠাক ছিল; আফ্রোএশিয়া ব্যাংক মরিশাস ওপেনের শিরোপাটাও চলে এসেছিল হাতের নাগালে। কিন্তু পরের দুই হোলে খেই হারালেন সিদ্দিকুর রহমান। স্নায়ুর লাগামটা কিভাবে মুঠো থেকে বেরিয়ে দারুণ স্বপ্নটার ‘অপমৃত্যু’ ঘটিয়ে দিল, তা বুঝতে পারছেন না বাংলাদেশের এই গলফারও।
অ্যানাহিতার ফোর সিজনস গলফ ক্লাব কোর্সে রোববার চতুর্থ ও শেষ রাউন্ডে পারের চেয়ে দুই শট বেশি খেলেন সিদ্দিকুর। সব মিলিয়ে পারের চেয়ে ৫ শট কম খেলে দ্বিতীয় হন ৩১ বছর বয়সী এই গলফার। তার চেয়ে এক শট কম খেলে সেরা হয়েছেন দ্বিতীয় স্থানে থেকে চতুর্থ রাউন্ড শুরু করা দক্ষিণ কোরিয়ার গলফার জেউনগুন ওয়াং।
মরিশাসের ইউরোপিয়ান ট্যুর ও এশিয়ান ট্যুরের এই যৌথ টুর্নামেন্টে চতুর্থ রাউন্ডের শেষ দিকে খেই হারানোর কারণটা বুঝতে না পারলেও নিজের খেলা নিয়ে খুশি সিদ্দিকুর।
“১৫ নম্বর হোল পর্যন্ত ভালো ছিল; কিন্তু দুর্ভাগ্যজনকভাবে আমি জানি না কি হয়েছিল। (১৬ নম্বর হোলে) প্রথম শটটা বাউন্ডারির বাইর নিলাম, এরপর চলল উত্থান-পতন কিন্তু এটা সত্যিই দুর্ভাগ্যজনক। তবে আমি আমার সেরাটা দিয়েছি।”
“নিজের খেলা নিয়ে আমি আসলেই খুশি এবং বিশ্বাস করি, এটা খেলার অংশ। সম্ভবত সামনেই আমার জন্য ভালো কিছু আছে।”
চতুর্থ রাউন্ডে ১৫তম হোলের পর ওয়াংয়ের চেয়ে ৩ শট এগিয়ে ছিলেন সিদ্দিকুর। কিন্তু তিনি পরের হোলে ডাবল বগি আর ১৭তম হোলে বগি করায় স্কোর সমান হয়ে যায়। শেষ হোলে ওয়াং বার্ডি করলেও পারেননি সিদ্দিকুর; পারের সমান শট খেলেন তিনি। ২০১৩ সালে হিরো ইন্ডিয়ান ওপেনে এশিয়ান ট্যুরে নিজের দ্বিতীয় ও সবশেষ শিরোপা জেতা সিদ্দিকুর জানান, দিনটা তার ছিল না।
“আমি দেখতে পাচ্ছিলাম, বলটা গর্তের দিকে যাচ্ছিল, আমি ইগল পেতাম। ভালো চিপ করেছিলাম কিন্তু পাট ততটা ভালো ছিল না। আমি মনে করি, এটা আমার দিন ছিল না।”
চলতি বছর এটি সিদ্দিকুরের এশিয়ান ট্যুরের নবম টুর্নামেন্ট। নিজের প্রথম টুর্নামেন্টে সিঙ্গাপুর ওপেনের দ্বিতীয় রাউন্ডে কাট-এর নিচে থেকে ছিটকে পড়েন তিনি। যে আসরে নিজের দ্বিতীয় শিরোপা জিতেছিলেন, সেই হিরো ইন্ডিয়ান ওপেনে ৫৮তম হন তিনি। মরিশাসে নোঙর ফেলার আগে জাপানের প্যানাসনিক ওপেনও শেষ করেন ৭৪তম হয়ে। মরিশাসের দ্বিতীয় হওয়াটা তাই অনেক বড় প্রাপ্তি সিদ্দিকুরের জন্য।
“দেখুন, আমি নিজেও ভাবিনি, আমি এখানে দ্বিতীয় হতে যাচ্ছি। এখানে আসার আগে গলফ নিয়ে আমি সত্যিই খুব ভুগছিলাম। দ্বিতীয় হয়ে আমি আসলেই ভীষণ খুশি।”
ঘুরে ফিরে খুশির কথা বললেও তীরে এসে তরী ডুবে যাওয়াটাও ভুলতে পারছেন না সিদ্দিকুর।
“এই সপ্তাহে আমি প্রকৃতই ভালো খেলেছি কিন্তু আমি জানি না, ভুলটা কি হলো। ভাবিনি আমি শিরোপা হারাব; কিন্তু এ জন্য কাউকে দোষ দিচ্ছি না আমি।”
“সম্ভবত এটা আমার জন্য ভালো একটা অভিজ্ঞতা। প্রথমবারের মতো কোনো ইউরোপিয়ান ট্যুরের শেষ দুই দিনে আমি সামনের দিকে ছিলাম। এই সপ্তাহে এগুলো হবে, তা আমি আশাও করিনি।”
মরিশাসের আত্মবিশ্বাস বছরের বাকিটা সময় টেনে নিয়ে যাওয়ার ব্যাপারে প্রত্যয়ী সিদ্দিকুর। এশিয়ান ট্যুরের অর্ডার অব মেরিটে দশম স্থানে উঠে আসা এই গলফার রিও দে জেনেইরোর অলিম্পিকে খেলার স্বপ্নটাও দেখছেন এখন।
“যেভাবে শেষটা হলো, আমি খুব খুশি। বিশ্ব র‌্যাংঙ্কিংয়ে এটা আমাকে দারুণভাবে সামনের দিকে নেবে। আশা করি, আসন্ন অলিম্পিকে অংশ নেওয়ার দৌড়ে আমি ফিরতে পারব। এই সপ্তাহ থেকে ইতিবাচক দিকগুলো আমি নেব এবং মৌসুমের বাকিটা সময়ের জন্য সামনের দিকে তাকিয়ে আছি। আশা করি, ভালো একটা বছর কাটবে আমার।”
আগামী ১১ জুলাইয়ের বিশ্ব র‌্যাঙ্কিং থেকে ৬০ জন গলফার অলিম্পিকে খেলার সুযোগ পাবেন। তবে র‌্যাংকিংয়ের সেরা ১৫ জনের মধ্যে প্রতি দেশ থেকে সর্বোচ্চ ৪ জন এবং সেরা পনেরোর পর প্রতি দেশ থেকে সর্বোচ্চ দুই জন সুযোগ পাবেন। কোনো দেশের কোটা পূর্ণ হয়ে গেলে র‌্যাংকিংয়ের উপরের দিকে থাকলেও আর সুযোগ মিলবে না সেই দেশের অন্য গলফারদের। ফলে বিশ্ব র‌্যাংকিংয়ে বেশ পেছনে থাকলেও বাংলাদেশের সেরা গলফার হিসেবে সিদ্দিকুরের অলিম্পিকে জায়গা করে নেওয়ার সম্ভাবনা আছে।
অলিম্পিক র‌্যাংকিংয়ের ৯ মের তালিকায় সবার শেষ ৬০ নম্বরের প্রতিযোগী সিঙ্গাপুরের মারদান মামাত যেমন আছেন বিশ্ব র‌্যাংকিংয়ের ৩৬৭ নম্বরে। গত ৮ মের বিশ্ব র‌্যাংকিংয়ে সিদ্দিকুরের অবস্থান ৪০৬ নম্বরে। তাই মরিশাস ওপেনে রানার্সআপ হওয়ায় সিদ্দিকুরের র‌্যাংকিং নিশ্চিতভাবে বাড়তে যাওয়ায় অলিম্পিকে জায়গা করে নেওয়ার সম্ভাবনা বাড়লো তার।

আরও দেখুন

image-152741-1552034275

নিষিদ্ধ হচ্ছেন নেইমার!

স্পোর্টস ডেস্ক: একেবারে অন্তিমলগ্নে পেনাল্টি। সফল স্পটকিকে গোল হজম করে প্যারিস সেন্ট জার্মেইন (পিএসজি)। দ্বিতীয় ...

Leave a Reply

%d bloggers like this: