হোম / অর্থনীতি-সংবাদ / চাঁপাইনবাবগঞ্জের সুমিষ্ট আম যাবে ইউরোপ ও মধ্যপ্রাচ্যে
images

চাঁপাইনবাবগঞ্জের সুমিষ্ট আম যাবে ইউরোপ ও মধ্যপ্রাচ্যে

চাঁপাইনবাবগঞ্জ প্রতিনিধি :

গতবছরের মত এবারো বিদেশে রফতানীর জন্য পুরোপুরি প্রস্তুত চাঁপাইনবাবগঞ্জের সুমিষ্ট আম। গতবছর বিশ্বখ্যাত চেইনসপ ওয়ালমার্টের মাধ্যমে ইংল্যান্ডে রফতানী হয়েছিলো চাঁপাইনবাবগঞ্জের আম। এবার শুধু ইংল্যান্ড নয়, ইউরোপ ও মধ্যপ্রাচ্যের দেশগুলোতে আম রফতানীর সম্ভাবনার কথা জানালেন ফল বিজ্ঞানীরা। এর মাধ্যমে বিশ্ববাজারে চাঁপাইনবাবগঞ্জের আম রফতানীর ক্ষেত্রে নতুন দিগন্ত উন্মোচিত হবে বলে মনে করছেন সংশি¬ষ্টরা।
রোগবালাই ও মাছি পোকার সংক্রামন থেকে আম রক্ষায় গত বছর থেকে চাঁপাইনবাবগঞ্জে বাণিজ্যিক ভিত্তিতে শুরু হয়েছে ফ্রুট ব্যাগিং প্রযুক্তির ব্যবহার। এই প্রযুক্তি ব্যবহারের কারনে বিদেশ রফতানীযোগ্য বিষমুক্ত আম উৎপাদন করা সম্ভব হয়। আর একারনেই এখানকার থেকে আম আমদানীতে আগ্রহ দেখায় বিশ্বখ্যাত কোম্পানী ওয়ালমার্ট। এই কোম্পানীটির মাধ্যমেই গতবছর চাঁপাইনবাবগঞ্জ থেকে স্থানীয় বাজারের চেয়ে কেজি প্রতি ২০ টাকা বেশি দরে ল্যাংড়া ও ফজলি জাতের প্রায় ৫ টন ব্যাগিং করা আম পাঠানো হয় ইংল্যান্ডে। গত বছরের অভিজ্ঞতাকে কাজে লাগিয়ে বিদেশে রফতানীযোগ্য আম উৎপাদনে এবার ব্যাপক আগ্রহ রয়েছে আমচাষীদের। সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে ইংল্যান্ড ছাড়াও এবার ইউরোপ ও মধ্যপ্রাচ্যের দেশগুলোতে খিরসাপাত, ল্যাংড়া, আম্রপলি ও ফজলি জাতের আম রফতানীর সম্ভাবনা রয়েছে। আর রফতানীযোগ্য আম উৎপাদনে এরই মধ্যে চাঁপাইনবাবগঞ্জের বিভিন্ন বাগানের প্রায় ৯ লাখ আমকে ব্যাগিং করা হয়েছে বলে জানালেন চাঁপাইনবাবগঞ্জ আঞ্চলিক উদ্যানতত্ব গবেষণা কেন্দ্রের বিজ্ঞানী ড. সরফ উদ্দিন। তিনি আরো জানান, বিদেশে আম রফতানীর ক্ষেত্রে বড় বাঁধা ছিল মাছি পোকার আক্রমন। আমে ব্যাগিং পদ্ধতি ব্যাবহার করায় মাছি পোকা আক্রমনের কোনো সুযোগ নেই বললেই চলে। এছাড়া ব্যাগিং পদ্ধতির কারনে আমে কীটনাশক ব্যবহারেরও প্রয়োজন হয়না। আর জেলার আম চাষী ও ব্যবসায়ীরা এবার ব্যাপক পরিমানে আম ব্যাগিং করায় বিদেশে রফতানীযোগ্য আম উৎপাদনও বাড়বে বলে জানান তিনি। তিনি আরো জানান, চাঁপাইনবাবগঞ্জ ছাড়াও এবার রাজশাহী, নাটোর, পাবনা, গোপালগঞ্জ, রাঙ্গামাটি, খাগড়াছড়ি ও বান্দরবান জেলায় বাণিজ্যিকভাবে আমে ব্যাগিং প্রযুক্তির ব্যবহার হয়েছে। আর ব্যাগিং প্রযুক্তিতে উৎপাদিত আম পুরোটায় রফতানিযোগ্য।
চাঁপাইনবাবগঞ্জ শহরের মাঝপাড়া এলাকার আমচাষী রবিউল ইসলাম প্রায় ৪০ হাজার আমে ব্যাগিং করেছেন। তিনি জানান বিদেশে রফতানী উপযোগী আম উৎপাদনে সচেষ্ট রয়েছেন তারা। এখন শুধু দরকার সরকারী ও বেসরকারী পৃষ্টপোষকতা। একই ভাবে শিবগঞ্জ উপজেলার লাওঘাটা গ্রামের মজিবুর রহমান প্রায় দেড় লাখ আম ব্যাগিং করেছেন। তিনি জানান বিদেশে রফতানীর জন্য এখন পুরোপুরি প্রস্তুত চাঁপাইনবাবগঞ্জের আম। তিনি আশা প্রকাশ করেন ফ্রুট ব্যাগিং পদ্ধতির মাধ্যমে আগামীতে বিশ্বের অন্যান্য দেশেও চাঁপাইনবাবগঞ্জের আম পাঠানো সম্ভব।

আরও দেখুন

Muslim-56450

মৌলভীবাজারের কুলাউড়ায় একই পরিবারের ৫ জনের ইসলাম গ্রহণ!

মৌলভীবাজার প্রতিনিধি : মৌলভীবাজারের কুলাউড়ায় ইসলাম ধর্মের প্রতি আকৃষ্ট হয়ে একই পরিবারের ৫ জন হিন্দু ...

Leave a Reply

%d bloggers like this: