হোম / মাঠে ময়দানে / নিষিদ্ধ হচ্ছেন নেইমার!
image-152741-1552034275

নিষিদ্ধ হচ্ছেন নেইমার!

স্পোর্টস ডেস্ক:

একেবারে অন্তিমলগ্নে পেনাল্টি। সফল স্পটকিকে গোল হজম করে প্যারিস সেন্ট জার্মেইন (পিএসজি)। দ্বিতীয় লেগে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের কাছে ৩-১ গোলে হেরে চ্যাম্পিয়নস লিগ থেকে বিদায় ঘটে প্যারিসের ক্লাবটির। ৯৪ মিনিটে মার্কাস রাশফোর্ডের পেনাল্টি গোলে দ্য পারিসিয়ানদের স্বপ্ন হয় চুরমার।

ম্যানইউর কাছে এ হার কোনোভাবেই মেনে নিতে পারেননি নেইমার। গেল মাসে চোট পেয়ে প্রায় আড়াই মাস মাঠের বাইরে তিনি। তবে হাইভোল্টেজ ম্যাচে পার্ক দেস প্রিন্সেসে উপস্থিত ছিলেন দলের প্রাণভোমরা। যোগ করা সময়ে ভিডিও অ্যাসিস্ট্যান্ট রেফারির (ভিএআর) সহায়তায় নেয়া ফিল্ড রেফারির পেনাল্টি সিদ্ধান্ত স্বচক্ষে অবলোকন করেছেন তিনি। সিদ্ধান্তটি দারুণ দৃষ্টিকটু ঠেকেছে তার কাছে। সেটি নাকি ছিল ভুল।

ইনজুরি টাইমে দিয়েগো দালোতের শট ডি-বক্সে পিএসজি রক্ষণসেনা প্রেসনেল কিম্পেম্বের হাতে লেগে বাইরে চলে যায়। প্রথমে কর্নারের বাঁশি বাজান রেফারি। পরে ভিএআরের সাহায্য নিয়ে পেনাল্টি দেন তিনি।

পরিপ্রেক্ষিতে রেফারির চাঁছাছোলা সমালোচনা করেন নেইমার। সেই হ্যান্ডবলের ছবির স্ক্রিনশট পোস্ট করে সোশ্যাল মিডিয়া ইনস্টাগ্রামে ব্রাজিলীয় ফরোয়ার্ড লেখেন, এটা লজ্জার! উয়েফা ভিএআরে সিদ্ধান্ত নিতে এমন চারজনকে রাখল, যারা ফুটবল সম্পর্কে কিছুই জানেন না। ওই হ্যান্ডবলটা হয়নি। পেছনে হাত থাকলে কী করে হ্যান্ডবল হয়? প্রশ্ন ছুড়ে দেন তিনি।

গেল পরশু রাতে শেষ ষোলোর ফিরতি লেগের পর দুই লেগ মিলিয়ে ফলাফল হয় ৩-৩। অর্থাৎ অমীমাংসিত। তবে শ্রেয়তর ‘অ্যাওয়ে গোল’ সুবিধায় শেষ আটে পা রাখে উলে গুনার সুলশারের দল। ম্যানইউর মাঠে প্রথম লেগে ২-০ গোলে জেতে পিএসজি। পেনাল্টিটি না দিলে কোয়ার্টার ফাইনালে যেত থমাস টুখেলের শিষ্যরা। উল্টো টানা তিনবার ইউরোপসেরা লিগের দ্বিতীয় রাউন্ড থেকেই বিদায় নিতে হয় তাদের।

এতে নেইমারের মাথা ঠিক থাকে কীভাবে! স্বাভাবিকভাবেই মেজাজ ধরে রাখতে পারেননি তিনি। মুখ খারাপ করে সরাসরি উয়েফাকে ‘গালিগালাজ’ করেন। বিষয়টি নজর এড়ায়নি ইউরোপীয় ফুটবল নিয়ন্ত্রক সংস্থারও। এর জেরে তাকে এখন শাস্তি দেয়ার কথা ভাবছে সংস্থাটি।

উয়েফার আইন অনুযায়ী,১১ নম্বর ধারা লঙ্ঘন করেছেন নেইমার। ফলে আগামী মৌসুমের চ্যাম্পিয়নস লিগে এক থেকে তিন ম্যাচ পর্যন্ত নিষিদ্ধ হতে পারেন তিনি।

ব্রাজিল যুবরাজ শাস্তি পাচ্ছেন না কি না,তা জানা যাবে ২৮ মার্চ। ওই দিন উয়েফার কর্তাব্যক্তিরা বৈঠকে বসবেন। সেখানেই চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত হবে। এর আগে এ ধরনের কাণ্ডে শাস্তি পান লিভারপুলের ক্রোয়াট ডিফেন্ডার দেয়ান লভরেন। উয়েফা নেশনস লিগে ক্রোয়েশিয়া-স্পেন ম্যাচের পর স্প্যানিশ অধিনায়ক সার্জিও রামোসকে উল্টোপাল্টা বলেন তিনি। এ কারণে এক ম্যাচ নিষিদ্ধ হতে হয় তাকে। এখন দেখার বিষয়, নেইমারকেও লভরেনের ভাগ্যবরণ করতে হয় কি না?

আরও দেখুন

image

দুই বছর ধরে পরিকল্পনা ছিল লক্ষ্য ছিল বাংলাদেশের ক্রিকেটাররা

স্পোর্টস্ ডেস্ক : নিউজিল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চে মসজিদে ভয়াবহ এই হামলায় হামলাকারীর লক্ষ্য ছিল বাংলাদেশ ক্রিকেটাররা। হামলার ...

Leave a Reply

%d bloggers like this: