হোম / ছবি সংবাদ / গরমে বাইকারদের অতি প্রয়োজনীয় অনুষঙ্গ
2016_04_24_16_03_24_eWXmEqWaqBLUOnoSw6dTQkRqKxqrUE_original

গরমে বাইকারদের অতি প্রয়োজনীয় অনুষঙ্গ

ঢাকা : চলার পথকে ঝামেলামুক্ত করতে অনেকেই বেছে নেন মোটরসাইকেল বা বাইসাইকেল। আমাদের দেশে বেশির ভাগ দ্বিচক্রযানের আরোহী পুরুষ। তবে মেয়েরাও আজকাল এর সঙ্গে যুক্ত হচ্ছেন উল্লেখযোগ্য হারে। এতে এক জায়গা থেকে অন্য জায়গায় ইচ্ছামতো চলাফেরা করা যায়, সময় বাঁচে, যানজট সৃষ্টি হয় না। এভাবে চলাচলে খরচ কমে যায়। কিন্তু বৈরি আবহাওয়াতে চলাচলে কিছুটা বিপত্তি ঘটে। বর্তমানে চলছে তীব্র গরমের আধিপত্য। এই গরমের মধ্যে যারা নিজেদের চলাচলে মোটরসাইকেল বা বাইসাইকেল ব্যবহার করেন, তাদের সুবিধার্থে অতি প্রয়োজনীয় কিছু অনুষঙ্গ রাখা উচিৎ। কারণ চলাচলের সময় দেহে সরাসরি রোদ লাগে, তাই গরমের ভাগটাও বেশি থাকে। চলার সময় প্রচুর ঘাম হয়, দেহ থেকে প্রয়োজনীয় লবণ পানি বেরিয়ে যায়। সবমিলে দ্রুত অসুস্থ হয়ে যাওয়ার আশঙ্কা থাকে।

হেলমেট

মোটর সাইকেল বা বাইসাইকেল কেনার সময় সর্বপ্রথম কিনতে হবে হেলমেট। আমাদের দেশে বাইক এক্সিডেন্টে প্রতিবছর যে পরিমান লোকের মৃত্যু হয়, তার মধ্যে ৬০ শতাংশ মৃত্যু প্রতিহত করা সম্ভব কেবলমাত্র একটি ভালোমানের হেলমেট পরিধানের মাধ্যমে। শুধু এক্সিডেন্ট নয়, মাথায় সুর্যের তাপ লাগা থেকে রক্ষা করতেও হেলমেট অনেক উপকারী।

গ্লাভস

আমাদের দেশে অনেকেই একে অপচয় মনে করেন। অনেকেই কেবল শীতকালে বাইক চালানোর সময় বাধ্য হয়ে গ্লাভস পরেন। কিন্তু বর্তমান সময়ের রোদের হাত থেকে বাঁচতে গ্লাভস পরে বাইক চালানো উচিৎ। লং গ্লাভসটি হাতের কব্জি থেকে কনুইয়ের উপর পর্যন্ত যাবে। এতে হাতের ত্বক রোদে পোড়া থেকে বাঁচাবে। ছোট খাটো কাটা ছেড়া থেকেও হাতকে রক্ষা করে। বাইক চালানোটা হবে আরামদায়ক।

জুতা

এটা রাইডিংয়ের জন্য আরেকটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। বাইক রাইডিংয়ের জন্য আপনার এমন ধরনের জুতো পড়া উচিৎ যাতে আপনি স্বাচ্ছন্দ্যবোধ করেন। এছাড়াও আপনাকে নিজের সামর্থ্য ও মৌসুমের কথা বিবেচনা করতে হবে। মাঝেমধ্যেই অনেককে দেখা যায় স্লিপার বা স্পঞ্জের স্যান্ডাল পড়ে বাইক চালাতে। দীর্ঘসময় বাইক চালাতে এসব থেকে বিরত থাকুন। এগুলোতে এক্সিডেন্টের ঝুঁকি বেশি থাকে।

বাইকের চশমা

চোখ খুবই স্পর্শকাতর একটি বিষয়। বাইক চালানোর সময় দ্রুত গরম হাওয়ার ঝাপটা একাধারে চোখে লাগলে সমস্যা হতে পারে। চোখ ফুলে যেতে পারে, চুলকাতে পারে, বাইরের ধুলা ময়লা ঢুকতে পারে। তাই সবকিছু থেকে নিজের চোখজোড়াকে রক্ষা করতে মানানসই একটি চশমা নিয়ে নিন। চোখও নিরাপদ থাকবে আবার স্টাইলিশ লুক আসবে।

পানি

বাইক চালানোর সময় অবশ্যই সঙ্গে বিশুদ্ধ পানি রাখতে হবে। স্যালাইনের পানি বা ডাবেও পানিও রাখতে পারেন। চলতে পথে একটু জিড়িয়ে পানীয় পান করতে পারেন। এই গরমে ঘামের মাধ্যমে যে ঘাটতি তার অনেকটায় দুর হয়ে যাবে। সুস্থভাবে চলার জন্য পানির কোনো বিকল্প নেই।

আরও দেখুন

05-20160410101324

মানসিক রোগের লক্ষণ অতিমাত্রায় সেলফি তোলা !

মানুষ নিজেকে দেখতে ভালোবাসে, নিজেকে অন্যের কাছে তুলে ধরতে ভালবাসে। নিজেই নানান ভঙ্গিতে নিজের ছবি ...

Leave a Reply

%d bloggers like this: